চট্টগ্রামে করোনাভাইরাস শনাক্ত

১২ বাড়িতে চলাচল সীমিত

চট্টগ্রামে করোনাভাইরাস শনাক্ত

চট্টগ্রামে প্রথমবারের মতো করোনাভাইরাস আক্রান্ত সেই ব্যক্তিকে চিকিৎসাপ্রদান করা ৩ চিকিৎসকসহ মোট ১৮ জনকে কোয়ারেন্টাইনে থাকার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে

চট্টগ্রামে করোনাভাইরাস আক্রান্ত সেই ব্যক্তিকে চিকিৎসা প্রদান করা ৩ চিকিৎসকসহ মোট ১৮ জন স্বাস্থ্যকর্মীকে কোয়ারেন্টাইনে থাকার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

শনিবার (৪ এপ্রিল) এ নির্দেশ দেওয়া হয় বলে জানিয়েছেন চট্টগ্রাম সিভিল  সার্জন ড. শেখ ফজলে রাব্বী।  এছাড়া যেই ব্যক্তির দ্বারা আক্রান্ত ব্যক্তির দেহে করোনাভাইরাস সংক্রমিত হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে, সেই ব্যক্তির বাড়িসহ আশেপাশে থাকা মোট ১২টি বাড়িতেও চলাচল সীমিত করা হয়েছে।

তিনি বলেন, “ভাইরাসআক্রান্ত ওই ব্যক্তি চট্টগ্রাম জেনারেল হাসপাতালে ভর্তির আগে আরও দুইটি হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছেন। এরমধ্যে একটি হাসপাতালে চিকিৎসা সুরক্ষাসামগ্রী (পিপিই) পরে চিকিৎসাসেবা প্রদান করা হয়।”

“তবে অপর হাসপাতালটিতে তাকে পিপিই ছাড়া চিকিৎসা দেওয়ায় ওই হাসপাতালের ৩জন চিকিৎসকসহ মোট ১৮জন স্বাস্থ্যকর্মীকে কোয়ারেন্টাইনে পাঠানো হয়েছে।”

এর আগে, গত ১২ মার্চ সৌদি আরব থেকে ওমরাহ পালন করে দেশে ফেরেন আক্রান্ত ওই ব্যক্তির মেয়ে ও মেয়ের শাশুড়ি। সেসময়  আক্রান্ত ব্যক্তির বাড়িতে কিছুক্ষণ অবস্থান করেন তারা,  সেখান থেকে সাতকানিয়া উপজেলায় তাদের নিজেদের বাড়িতে ফেরেন তারা।”

এ কারণে আক্রান্ত ওই ব্যক্তির মেয়ের শ্বশুরবাড়িসহ আশেপাশের ১২টি বাড়িতে চলাচল সীমিত করেছে স্থানীয় প্রশাসন। এমনটি জানিয়েছেন সাতকানিয়া উপজেলার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) নূরে আলম।

তিনি বলেন, “আক্রান্ত ব্যক্তির মেয়ের শাশুড়ি সৌদি আরব থেকে ওমরাহ পালন করে ফেরার পর ১৪ দিন কোয়ারেন্টাইনে ছিলেন। বর্তমানে আবার তিনি করোনাভাইরাস আক্রান্ত কিনা তা পরীক্ষা করা হবে। ওই নারীকে আবারও কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে। এছাড়া ওই নারীর বাড়িসহ আশেপাশের ১২টি বাড়িতে চলাচল সীমিত করা হয়েছে।”